16-05-2016
PGCB to boost up power transmission in Dhaka-South and Munshiganj


ঢাকার দক্ষিণাংশ এবং মুন্সীগঞ্জে ঢাকা অর্থনৈতিক জোন, আইটি স্পেশাল ইকনমিক জোন, আবদুল মোনেম প্রাইভেট ইকনমিক জোন এবং গার্মেন্ট শিল্প পার্ক সহ সরকারের অনেকগুলো উন্নয়ন কর্মসূচী বাস্তবায়িত হবে। শীঘ্রই এসব এলাকায় বিদ্যুতের ব্যাপক চাহিদা তৈরি হবে। বিদ্যুতের এই চাহিদা মেটাতে বড় কর্মদ্যোগ নিয়েছে পাওয়ার গ্রীড কোম্পানী অব বাংলাদেশ লিঃ (পিজিসিবি)। এর অংশ হিসাবে ঢাকার কেরাণীগঞ্জে ২৩০/১৩২/৩৩ কেভি জিআইএস সাবস্টেশন নির্মাণ করছে সংস্থাটি। উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন এ সাবস্টেশন চালু হলে ঢাকার দক্ষিণাংশ এবং মুন্সীগঞ্জে গুণগত মানসম্পন্ন ও নির্ভরযোগ্য বিদ্যুৎ নিশ্চিত হবে। লো-ভোল্টেজ ও লোডশেডিং সমস্যা কমবে। চলমান শিল্পায়ণ ও নগরায়ণের জন্য যথাযথ বিদ্যুৎ সরবরাহ করা সম্ভব হবে।\r\n\r\nগ্রীড সাবস্টেশনটি নির্মাণের লক্ষ্যে সোমবার (১৬ মে ২০১৬) পিজিসিবি প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সিমেন্স লিঃ ও সিমেন্স বাংলাদেশ লিঃ যৌথ কনসোর্টিয়ামের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি স্বাক্ষর করেছে পিজিসিবি। ‘‘এ্যানহেন্সমেন্ট অব ক্যাপাসিটি অব গ্রীড সাবস্টেশনস এ- ট্রান্সমিশন লাইনস ফর রুরাল ইলেকট্রিফিকেশন (ইসিজিএসটিএল)’’ প্রকল্পের আওতায় কাজটি করা হচ্ছে।\r\n\r\nচুক্তিপত্রে বলা হয়, আগামী ২০ মাসের মধ্যে সিমেন্স কনসোর্টিয়াম কেরাণীগঞ্জে সাবস্টেশন নির্মাণ করে পিজিসিবি’র কাছে হস্তান্তর করবে। এ কাজে ব্যয় হবে ১৭০ কোটি টাকা। বিশ্বব্যাংক, বাংলাদেশ সরকার এবং পিজিসিবি যৌথভাবে এই অর্থায়ণ করছে। পিজিসিবি’র পক্ষে কোম্পানী সচিব মোঃ আশরাফ হোসেন এবং সিমেন্স কনসোর্টিয়ামের পক্ষে ঋষি ম্যাগন (Rishi Maggon) চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেন।\r\n\r\nপ্রকল্প পরিচালক মোহাম্মদ শহীদ হোসেন জানান, ঢাকার নবাবগঞ্জ ও মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে দুটি নতুন ১৩২/৩৩ কেভি গ্রীড সাবস্টেশন নির্মাণাধীন রয়েছে। এ দু’টি সাবস্টেশনে বিদ্যুৎ সঞ্চালনের উৎস হিসাবে কাজ করবে কেরাণীগঞ্জ গ্রীড সাবস্টেশন। এসব স্থানে বিদ্যুতের ক্রমবর্ধমান চাহিদা পূরণ হবে।\r\n\r\nসরকারের উন্নয়ন পরিকল্পনার আওতায় কেরাণীগঞ্জ, নবাবগঞ্জ ও শ্রীনগর ভারী শিল্প এলাকায় রূপান্তর হচ্ছে। এসব এলাকায় শিল্প কারখানা স্থাপনের মাধ্যমে অনেক লোকের কর্মসংস্থান হবে। এতে আবাসন সুবিধা ও বিদ্যুৎ সংযোগের চাহিদাও বহুগুণে বাড়বে। এসব কারণে পিজিসিবি নতুন গ্রীড সাবস্টেশন নির্মাণ করে বিদ্যুৎ সঞ্চালন বাড়ানোর পদক্ষেপ নিয়েছে।\r\n\r\nঅনুষ্ঠানে পিজিসিবি ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাসুম-আলবেরুনী, নির্বাহী পরিচালক (পিএন্ডডি) চৌধুরী আলমগীর হোসেন, নির্বাহী পরিচালক (ওএন্ডএম) মোঃ এমদাদুল ইসলাম, নির্বাহী পরিচালক (এইচআর) মোহাম্মদ শফিকউল্লাহ, নির্বাহী পরিচালক (অর্থ) পরেশ চন্দ্র রায়, প্রধান প্রকৌশলী (প্রকল্প) ফরিদ উদ্দিন আহমেদ সহ উভয়পক্ষে উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।\r\n